মেসাল ৬:৭ – পিপিলিকাদের নেতা বা মজুরসরদার আছে?

মেসাল ৬:৭—“এই আয়াত অনুযায়ী পিপিলিকাদের কোন নেতা বা মজুরসরদার নাই, কিন্তু তাদের রাণী ও মজুরসরদার আছে।”

পিঁপড়াদের “হুকুম দেবার কেউ নেই,
তার উপরে কোন পরিচালক বা শাসনকর্তা নেই” (মেসাল ৬:৭)

নায়েক বলেন যে সেটা বিজ্ঞান বিপরীত, কারণ পিঁপড়াদের মধ্যে একজন রানী থাকে এবং মজুরসরদার থাকে। পিঁপড়া সমাজের সম্পর্কে অল্প একটু গবেষণা করলে জানা যায়, পিঁপড়ার ‘রানী’ কোন রকম নেতা নয়। একটি উইকিপিডিয়া এইভাবে বর্ণনা করেছেন—

The term “queen” is often deceptive, as the queen ant has very little control over the colony as a whole. She has no known authority or decision-making control; instead her sole function is to reproduce. Therefore the queen is best understood as the reproductive element of a colony rather than a leader.” [“রানী” শব্দটা অনেকখানি ভ্রান্তিজনক, কারণ কলোনির উপরে রানীর কোনও হাত নেই। তার কোন অধিকার নেই বা সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষমতা নেই; তার একমাত্র ভূমিকা হল বংশবৃদ্ধি করা। এইজন্য রানীরা কোন নেতা নয় বরং কলোনির পুনরুৎপাদনশীলকারী। ]

তারপর নায়েক একটি স্পষ্ট মিথ্যা বলেন যে পিঁপড়াদের “ফোরমেন” থাকে (অর্থাৎ কর্মী দলের সরদার)। কিছু পিপীলিকা কলোনির এক শ্রেণী সৈন্য থাকে বটে, কিন্তু কোনও শ্রেণী নাই যেটাকে বলা যায় ‘মজুরসরদার’ বা foreman

  1. “queen ant”, Wikipedia.org, September 29, 2009 (http://en.wikipedia.org/wiki/Queen_ant)

কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমরা শুনতে চাই! নিচের ফর্ম দিয়ে যোগাযোগ করুন:

Enable javascript in your browser if this form does not load.

Leave a Reply

Your email address will not be published.