রংধনুর সৃষ্টি

পয়দায়েশ ৯:১৩—“বৈজ্ঞানিক দিক থেকে সেটা সম্ভব না যে শুধুমাত্র মহাবন্যার পরে আল্লাহ্‌ রংধনু সৃষ্টি করেছেন”

কিতাবুল মোকাদ্দসে তো কিন্তু কোন ইঙ্গিত নাই যে বন্যার আগে রংধনু ছিল না; অবশ্যই তা আগে থেকেই ছিল। আল্লাহ্‌ হযরত নূহ্‌কে বরং বলেছিলেন যে সেটা তার কাছে আল্লাহ্‌র প্রতিজ্ঞা মনে রাখার জন্য একটি বিশেষ চিহ্ন হবে যে তিনি আবার দুনিয়া সেভাবে ধ্বংস করবে না। তেমনই ভাবে পয়দায়েশ ১৫ অধ্যায়ে আল্লাহ্‌ হযরত ইবরাহিমকে তারা দেখিয়ে বলল যে সেটা তার জন্য একটি চিহ্ন হবে কত বংশধর তাকে দেওয়া হবে। তাতে কি আমরা বুঝবো যে তারাগুলো শুধু তখনই সৃষ্টি হয়েছিল? অবশ্যই না। এই দুর্বল যুক্তি অনুযায়ী বলতে হবে যে কোরআন শরীফে বর্ণিত সমস্ত প্রাকৃতিক চিহ্ন বা ‘আয়াহ্‌’ শুধু মুহাম্মদ (সা)-এর জীবনকালেই সৃষ্টি হয়েছিল।

কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমরা শুনতে চাই! নিচের ফর্ম দিয়ে যোগাযোগ করুন:

Enable javascript in your browser if this form does not load.

Leave a Reply

Your email address will not be published.