অবৈজ্ঞানিক পরীক্ষা?

শুমারী ৫:১১-৩১—“তেঁতো পানির এই জেনার পরীক্ষা অবৈজ্ঞানিক নয়?”

আধুনিক দৃষ্টিতে এই পরীক্ষা অদ্ভুত, কিন্তু যারা আল্লাহ্‌র ক্ষমতা এবং কেরামতী বিশ্বাস করে তাদের কাছে এটার কোন সমস্য হওয়ার কথা না। এই তেঁতো পানি কোন রকম যাদু বা মানসিক কৌশল না, কারণ বার বার বলা হয়েছে যে এটা তার কাছে ক্ষতিকর হলে সেটা আল্লাহ্‌রই কাজ (১৬,২১,২৫ আয়াত)।

সাহীহ্‌ হাদীসের মধ্যে বেশ কিছু হাদীস আছে যেগুলো আপাতদৃষ্টিতে যাদুর সমর্থন করে। বোখারী শরিফে বলা হয় যে চুল এবং পরাগ দিয়ে নবীজী (স)-এর উপর যাদু করা হয়েছে। সাহীহ্‌ মুসলিমে বলা হয়েছে যে রাসূলুল্লাহ (ছ) একজনকে ঝাড়-ফুঁকের অনুমতি এবং উৎসাহ্‌ দেন। (সাহীহ্‌ মুসলিম, হাদীস নং ৫৫৭৮)। হযরত আয়েশা (রা) বলেছেন যে রাসূলুল্লাহ (ছ) তাঁকে [আয়েশাকে] বদ্‌ নজর লাগা থেকে রক্ষা পাওয়া জন্য ঝাড়-ফুঁক করার হুকুম করতেন (সাহীহ্‌ মুসলিম, হাদীস নং-৫৫৭১,৫৫৭৩)। সাহীহ্‌ বোখারী অনুযায়ী, “খারাপ স্বপ্ন দেখলে তার থেকে আশ্রয় চাইবে এবং নিজের বাম দিকে থুতু নিক্ষেপ করবে। তাহলে তার কোন ক্ষতি হবে না” (বোখারী হাদীস #৬৫০২)।

কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমরা শুনতে চাই! নিচের ফর্ম দিয়ে যোগাযোগ করুন:

Enable javascript in your browser if this form does not load.

Leave a Reply

Your email address will not be published.