লূক ১৪:২৬ – বাবা-মাকে ঘৃণা করা?

লূক ১৪:২৬—“ঈসা মসীহ্‌ কি এখানে বাবা-মাকে ঘৃণা করতে বলেছিলেন?”

উপরোক্ত প্রশ্ন থেকে বোঝা যায় সমালোচক প্রাচীন সাহিত্যের সাথে অপরিচিত। এই rhetorical device-কে বলা হয় hyperbole, এবং প্রাচীন লেখায় তা খুব বেশী দেখা যায়। ঈসা মসীহ্‌র যুগে সবাই বুঝেছিল যে তিনি আক্ষরিক ‘ঘৃণা’ বলেননি বরং “তুলনামূলক ভাবে চেয়ে কম ভালবাসা”। কিতাবুল মোকাদ্দেসের অন্যান্য জায়গায় এই hyperbole –এর উদাহরণ পাওয়া যায় যেখানে সুস্পষ্টই আক্ষরিক ঘৃণার কথা বলা হচ্ছে না বরং শুধু “তুলনামূলক ভাবে কম মহব্বত করা”, যেমন পয়দায়েশ ২৯:৩০-৩১। আরেকটি উদাহরণ আছে লূক ১৬:১৩:

“কোন গোলাম দু’জন কর্তার সেবা করতে পারে না, কারণ সে একজনকে ঘৃণা করবে ও অন্যজনকে ভালবাসবে, কিংবা সে একজনের প্রতি মনোযোগ দেবে ও অন্যজনকে তুচ্ছ করবে। আ্লাহ্ ও ধন-সম্পত্তি এই দু’য়েরই সেবা তোমরা একসংগে করতে পার না।” (লূক ১৬:১৩)

এখানে অবশ্যই আক্ষরিক ঘৃণা বোঝানো হচ্ছে না, কারণ তিনি সাধীনভাবে দু’জন মালিক পছন্দ করার কথা বলছেন। এই hyperbole–এর আরেকটি উদাহরণ দেওয়া যায় গ্রীক লেখা কোর্পুস হের্মেটিকুম থেকে:

“প্রিয় সন্তান, প্রথমে নিজের শরীরকে ঘৃণা না করলে নিজেকে মহব্বত করতে পারবে না” (পইমান্দ্রেজ ৪:৬)

Poetae Lyrici Graeci বইয়ের একটি যুদ্ধের গানে বলা হয়েছে যে মানুষ:

“স্পার্টা শহরের মর্জাদার জন্য নিজের জীবনকে নিজের শত্রু মনে করতে হবে”

এখানে আক্ষরিক ঘৃনা বলা হচ্ছে? অবশ্যই না। ঈসা মসীহ্র কথার মত, এখানে বোঝানো হচ্ছে “তুলনামূলকভাবে কম ভালবাসা”।

মথি ১০:৩৭ আয়াতে হযরত ঈসার কথার সঠিক ব্যাখ্যা পাওয়া যায়:

“যে কেউ আমার চেয়ে পিতা-মাতাকে বেশী ভালবাসে সে আমার উপযুক্ত নয়।

মূসার ১০টি শরিয়তে পিতামাতাকে সম্মান করার ৫ম নিয়মের উপর ঈসা মসীহ্ জোর দিয়েছিলেন। মথি ১৯:১৯-এ ঈসা মসীহ্ “পিতামাতাকে সম্মান করার” নিয়মকে ৬টি প্রধান নিয়মের মধ্যে দিয়েছিলেন। আবার তিনি ইহুদী আলেমদের বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন যে এরা এদের পিতামাতার অবহেলা করতেন (মথি ১৫:৪,৫)

একটি আয়াতের প্রকৃত অর্থ বোঝার জন্য আরেকটি পরীক্ষা আছে: এমনভাবে কোন গোড়া বিশ্বাসী কখনও ব্যাখ্যা করেছিলেন? যেমন ধরেন হয়ত আমরা বিতর্ক করছি কোন একটি আয়াত হিংস্রতার শিক্ষা দিচ্ছে কিনা। যদি ইতিহাস জুড়ে বিশ্বাসীরা নিয়মিতভাবে সেটা হিংস্রতার সমর্থনে ব্যবহার করেছে, তাহলে সম্ভবত সেখানে হিংস্রতার শিক্ষা সত্যি রয়েছে। কিন্তু লূক ১৪:২৬ আয়াতের ক্ষেত্রে, কোনো বিশ্বাসী কখনও এটা এমন ভাবে ব্যাখ্যা করে নি, যে আমার বাবা-মাকে এখন থেকে ঘৃণা করতে হবে।

কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমরা শুনতে চাই! নিচের ফর্ম দিয়ে যোগাযোগ করুন:

Enable javascript in your browser if this form does not load.

Leave a Reply

Your email address will not be published.