সোলায়মান ৫:১৬ – মুহাম্মদের নাম?

জাকির নায়েক সোলায়মান পুস্তিকার ৫:১৬ আয়াতে মুহাম্মদকে নিয়ে একটি ভবিষ্যদ্বানী আছে বলে দাবি করেন:

“তাঁর মুখখানা খুব মিষ্টি, তাঁর সবই সুন্দর।
হে জেরুজালেমের মেয়েরা, উনিই আমার প্রিয়, আমার বন্ধু।” (সোলায়মান ৫:১৬)

যে প্রসঙ্গের মধ্যে এই কথাটি বলা হয়েছে, জাকির নায়েক তা খুব সাবধানে লুকিয়ে রেখে দাবি করেন যে যেহেতু “প্রেমিক” হিব্রু ভাষায় হয় מחמד (ম-হ-ম-দ, আরবীতে محمد), সেহেতু এটি মুহাম্মদকে নিয়ে একটি ভবিষ্যদ্বানী। অথচ এই আয়াতটি এমন একটা অধ্যায়ের অংশ যেখানে বিয়ের সময়ে একজন কনে তার বরের বিস্তারিত বর্ণনা দিচ্ছেন। তথাপি নায়েকের নতুন অনুবাদ অনুযায়ী “প্রেমিক” এই বিশেষণকে বাদ দিয়ে একটা নাম বসাতে হবে যা এই বাক্যের ব্যাকরণের সঙ্গে খাপ খায় না:

‘তাঁর মুখখানা খুব মিষ্টি, וְכֻלֹּו מַחֲמַדִּיםতাঁর সবই মুহাম্মদ” (সোলায়মান ৫:১৬)

এই পুরো অধ্যায়টা বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে এই আয়াতে মোহাম্মদের বিষয়ে কিছু বলা হয় নি এবং এটি কোন ভবিষ্যদ্বানীও নয়, বরং এমন ধরণের দাবি করা শুধুমাত্র মানুষকে ভ্রান্ত করার একটা চেষ্টা। নায়েকের এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে আমরা এই ধরণের আরও অনেক ‘ভবিষ্যদ্বানী’ কিতাবুল মোকাদ্দসে আবিষ্কার করতে পারি । হযরত মুহাম্মদ(সাঃ)-এর ঠিক আগে ও পরে মানী এবং মিরজা হুসেইন আলী (বাহাউল্লাহ) নামক দু’জন অ-মুসলিম নবী ‘কিতাব’ নিয়ে এসে দাবি করেছেন যে তারাও ঈসা নবীর পরে আগত নবী। জাকির নায়েকের এই সন্দেহজনক পদ্ধতি আমরা যদি এই লোকদের জন্য ব্যবহার করি, তাহলে আমরা দেখি যে, বাহাউল্লাহ্‌ (חסין) নামটি জবুর শরীফ ৮৯:৮ আয়াতে উল্লেখ করা আছে এবং মানী (מנּי) নামটা গোটা কিতাবুল মোকাদ্দসে ১৮টি জায়গায় উল্লেখ করা আছে! আমরা তাহলে কী স্বীকার করে নিব যে এই আয়াতগুলোতে এই অ-মুসলিম নবীদের বিষয়েই ভবিষ্যদ্বানী করে?

  1. .’সোলায়মানের শীর’ (שיר השירים) কিতাবটার ইংরেজি নাম হয় ‘Song of Solomon’

কোনো প্রশ্ন বা মন্তব্য থাকলে আমরা শুনতে চাই! নিচের ফর্ম দিয়ে যোগাযোগ করুন:

Enable javascript in your browser if this form does not load.

Leave a Reply

Your email address will not be published.